Unilever logo
Cleanipedia logo

মশার প্রকোপ গেছে বেড়ে এই ৫টি গাছ রাখুন ঘরে!

যদিও বাজারে মশা দূর করার জন্য নানান স্প্রে বা অ্যারসল রয়েছে, কিন্তু গাছপালা দিয়ে প্রাকৃতিক বিকল্প পথ গ্রহণ করা সবচেয়ে ভালো।

আপডেট করা হয়েছে

moshar prokom hero

পোকামাকড় নিরোধক গাছগুলোকে তাদের প্রাকৃতিক সুগন্ধ দিয়ে মশাকে দূরে রাখে এবং সুগন্ধ ছড়ায়। এরকম ৫টি গাছ সম্পর্কে জানুন আমাদের থেকে।

কিছু প্রো টিপস- ● অতিথিরা বেশির ভাগ সময় ব্যয় করে, এমন জায়গায় এই গাছগুলো রাখুন। ● আরও কিছু জায়গা মাথায় রাখুন যেমন: জানালা, দরজা, হাঁটার পথ, বসার জায়গা এবং খাবারের আশেপাশে। ● কিছু পাতা সরাসরি ত্বকে ঘষে ফেলা যায় আরও বেশি কার্যকারিতা পাওয়ার জন্য। তবে এটি সব গাছের ক্ষেত্রে না করাই ভালো। ● আপনার উঠানে মশা প্রজনন রোধ করতে, সমস্ত স্থায়ী জল থেকে মুক্তি পান।

যেসব গাছ আপনি লাগাবেন

এর মধ্যে কিছু গাছপালা ছোটো ছোটো পট বা হাড়িতে লাগানো ভালো যেন তা সহজে ঘরে বহন করা যায়। অন্যদিকে, অন্যান্য গাছপালা বাগানে আরও ভালো কাজ করে যেহেতু তারা একাধিক ধরনের পোকামাকড় তাড়ায়। এমন কিছু গাছ হলো-

  1. রসুন গাছ

    রসুনের তীব্র গন্ধ মশার জন্য প্রতিরোধক। আপনার ত্বকে সরাসরি রসুনের রস ঘষে ফেলাও মশাকে দূরে রাখতে পারে।

  2. ল্যাভেন্ডার

    এই মনোরম গন্ধযুক্ত গাছটি আপনার মনকে চাঙা করতে পারে এবং একই সাথে মশা দূর করতে পারে। দুর্দান্ত চায়ের উপাদান হওয়ার সাথে সাথে ল্যাভেন্ডার অন্যান্য উড়ন্ত কীটপতঙ্গগুলোকেও দূরে রাখতে পারে। ল্যাভেন্ডারের বিভিন্ন প্রকার রয়েছে এবং আমাদের আবহাওয়াতে এটি ভালো থাকে।

  3. লেমনগ্রাস

    লেমনগ্রাসে উচ্চ স্তরের সিট্রাল রয়েছে, এটি মশা দূর করার স্প্রেতে ব্যবহৃত তেল। এই সুগন্ধি গাছ স্যুপ এবং অন্যান্য খাবারের মধ্যে দুর্দান্ত স্বাদ যুক্ত করে।

  4. গাঁদা ফুল

    গাঁদা আমাদের বাগান করার জন্য জনপ্রিয় ফুল গাছ। এই ফুলগুলোতে সুগন্ধ থাকে এবং তাদের হালকা এবং সিট্রাসি স্বাদের কারণে যে কোনও সালাদ, স্যুপ বা ভেষজ মাখনে দুর্দান্ত স্বাদ পায়। গাঁদা ফুলে পাইরেথ্রাম থাকে, যা একটি যৌগিক পদার্থ হিসেবে ব্যবহৃত হয় অনেক repellants তৈরি করতেই । গাঁদা ফুল গাছ "প্রকৃতির কীটনাশক" হিসাবেও পরিচিত।

  5. পুদিনা পাতা

    পুদিনা মশা, মাছি এমনকি পিঁপড়াকে দূরে রাখার জন্য একটি দুর্দান্ত ননটক্সিক বিকল্প। এটি আপনার ঘরের মধ্যে ছোটো ছোটো পাত্রে রাখা যায় এবং মশা দূর করার সাথে সাথে এটি রান্নায়, চায়ের মধ্যে, শরবত তৈরিতে, এমনকি পাতা শুকিয়ে নিয়ে এটিকে প্রাকৃতিক কীটপতঙ্গ নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি হিসাবে আপনার বাড়ির অভ্যন্তরে ব্যবহার করতে পারেন।

মূলভাবে প্রকাশিত