নন-স্টিক কুকওয়্যার ব্যবহার করার সময় এড়ানোর বিষয়সমূহ

দীর্ঘকাল ধরে আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যার সেরা অবস্থায় রাখতে, এইসব বিষয় করা এড়ান| এইসব টিপ্স মাথায় রাখুন আর ওইসব ব্যাপারে আপনাকে কিছুই চিন্তা করতে হবে না|

নিবন্ধ আপডেট হয়েছে

Things to Avoid When Using Non-Stick Cookware

আপনার নন-স্টিক প্যান থেকে আপনার প্লেটে পরিপাটিভাবে ওমলেট আসার ক্ষেত্রে এটা কি তৃপ্তি দেয় না? কিংবা নামমাত্র তেল দিয়ে অতি দ্রুত ফ্রায়েড রাইস রান্না করা? আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যার বেশি টেকসই করতে, কয়েকটা বিষয় থাকে যেগুলো করা আপনাকে অবশ্যই এড়াতে হবে| সেগুলো কী এই নিবন্ধে আমরা তা আপনাকে জানাব|

উত্তম অবস্থায় রাখতে আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যার ইউনিটগুলো সপ্তাহে একবার মিনারেল অয়েল দিয়ে সিজন করুন| এগুলো ব্যবহার করার পূর্বে আপনার আঙুল দিয়ে ঘষে তেলের পাতলা প্রলেপ দিন আর পুরোপুরি শুকিয়ে যেতে দিন|

১) ধাতুর বাসনপত্রকে না বলুন

আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যারে রান্না করার সময় ধাতুর চামচগুলো এড়ান| এগুলো আঁচড় পড়া এবং কোটিং ক্ষতিগ্রস্ত করার কারণ হবে| পরিবর্তে, নন-ষ্টিক-বান্ধব স্প্যাটিউলা ব্যবহার করুন|

২) নন-স্টিক প্যান পৃথকভাবে রাখুন

আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যার ধোওয়ার পর, মাইক্রোফাইবার কাপড় দিয়ে মুছে শুকিয়ে নিন| তারপর অন্যান্য মেটিরিয়ালের বাসনপত্র থেকে আলাদা করে রাখুন| এটা আঁচড় পড়া ও ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া প্রতিরোধ করবে| প্রত্যেকটার মধ্যে পেপার টাওয়েল রাখার দ্বারা সারি দেওয়া হলো স্মার্ট পছন্দের ব্যাপার| কিছু বিকল্পরূপে আপনি পেপার প্লেট বা নরম কাপড় ব্যবহার করতে পারেন|

৩) খালি নন-স্টিক প্যান আগেই গরম করবেন না

প্যান গরম করার আগে, উপরিতলে সমানভাবে তেলের একটা পাতলা প্রলেপ প্রয়োগ করতে আমরা সুপারিশ করি| এটা যেকোন পোড়া বা ক্ষতিগ্রন্ত হওয়া প্রতিরোধ করবে| কখনো কোনও খালি নন-স্টিক প্যান আগেই গরম করবেন না, যেহেতু এটা কোটিংয়ের বিষ ছাড়ার কারণ হতে পারে|

৪) বেশি তাপের সেটিং ব্যবহার করবেন না

আপনার নন-স্টিক বাসনপত্রে রান্না করার সময় কম বা মাঝারি তাপ ব্যবহার করতে আমরা আপনাকে সুপারিশ করছি| উচ্চ তাপ কোটিং-এর ক্ষতি করতে পারে এবং কিছু ক্ষেত্রে ধোঁয়াও ছাড়তে পারে| এটা ঘটলে, অবিলম্বে তাপ কমিয়ে দেবেন এবং জানলাগুলো খুলে দেবেন|

৫) অ্যাসিডিক খাদ্য রান্না করবেন না

আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যারে টমেটো বা লেবুর মতো অ্যাসিডিক খাদ্য রান্না করা এড়াবেন| এইসব খাদ্যের অ্যাসিডিক গুণ উপরিতলে ফোস্কা ওঠা এবং কোটিং ক্ষতিগ্রস্ত করার কারণ হতে পারে|

৬) জোরদারভাবে পরিষ্কার করবেন না

আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যারে খরখরে ক্লিনার্স ব্যবহার করা এড়াবেন| ২ কাপ ঈষদুষ্ণ জল আর ১ চা চামচ ডিশওয়াশিং লিকুইড দিয়ে পাতলা ক্লিনিং সলিউশন বানান| কুকওয়্যার পরিষ্কার করতে স্ক্র্যাচপ্রুফ ডিশ স্ক্র্যাবার ব্যবহার করুন| ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে ধোবেন এবং অবিলম্বে মাইক্রোফাইবার কাপড় দিয়ে মুছে শুকিয়ে নেবেন|

৭) কোটিং ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া নন-স্টিক কুকওয়্যার ব্যবহার করা এড়াবেন

নন-স্টিক কুকওয়্যারের কোটিং নষ্ট হয়ে গেলে, এটা ফেলে দেওয়াই ভালো| নষ্ট  হওয়া নন-স্টিক কুকওয়্যারের বিষ ছাড়ার অধিক সম্ভাবনা থাকে এবং এটা আপনার স্বাস্থ্যের পক্ষে খারাপ|

সুতরাং, এরপর আপনার নন-স্টিক কুকওয়্যার বের করার আগে, ওগুলোকে দীর্ঘ আয়ু দিতে এইসব সহজ টিপ্স মাথায় রাখুন

নিবন্ধটি মূলত প্রকাশিত