বিভিন্ন ধরনের পোশাক কাচার সেরা উপায়

এক এক ধরনের সুতোর পোশাকের জন্য এক এক ধরনের কাচার উপায় জানাটা সহজ নয়। মেশিনের সেটিং কী হবে? সিল্কের জিনিস কি হাতে কাচা উচিত? এমন নানা প্রশ্ন মাথায় ঘুরপাক খায়,অনেক সময়ই যার উত্তর জানা থাকে না। তাই আমরা সব ধরনের পোশাক একসঙ্গে মেশিনে দিয়ে একটি স্ট্যান্ডার্ড সেটিং-এই কাচাকাচি করি।

নিবন্ধ আপডেট হয়েছে

best-washing-practices-for-different-fabric-types

আপনার জামাকাপড় দীর্ঘদিন ধরে টেকসই রাখতে সার্ফ এক্সেল ব্যবহার করুন, এবং নীচের পরামর্শগুলি গুরুবচন হিসেবে মেনে চলুন।

১) সুতী

জিন্স ও সুতীর প্যান্ট ঠান্ডা জলে কাচুন। তরল ডিটারজেন্ট ব্যবহার করুন। যেমন সাদা জামার দাগ দূর করতে সার্ফ এক্সেল ব্যবহার করুন। রঙিন জামাকাপড় ক্লোরিনবিহীন ব্লিচ দিয়ে কাচলে ঝকঝকে হয়ে ওঠে। এক্ষেত্রে ঈষদুষ্ণ জলই সবচেয়ে ভাল।

২) পলিয়েস্টার

পলিয়েস্টারের পোশাকের যত্ন নেওয়া খুব সহজ, কিন্তু সমস্যা একটাই, এতে সহজেই দাগ ধরে নেয়। কাচার আগে দাগ লাগা জায়গায় স্টেইন রিমুভার ব্যবহার করুন। ১০ থেকে ২০ মিনিট রেখে দিয়ে তার পর কাচুন।

৩) উল

উল জলে কাচা যায়। তবে পোশাকের লেবেলে যদি ড্রাই ওয়াশ করার নির্দেশিকা থাকে তাহলে সেটাই করুন। উলের পোশাক খুব সামান্য গরম জলে কাচুন। ঠান্ডা জলে কাচলে উলের পোশাক কুঁচকে যেতে পারে।

৪) সিল্ক

অধিকাংশ সিল্কের পোশাকের লেবেলে ড্রাই ক্লিন করার নির্দেশিকা দেওয়া থাকে। তবে বেবি শ্যাম্পু দিয়েও হাতে কেচে নেওয়া যেতে পারে যেহেতু তাতে কোনও খতিকারক রাসায়নিক থাকে না।

নিবন্ধটি মূলত প্রকাশিত